ব্যাসিক কীওয়ার্ড রিচার্স

এসইও এর মধ্যে যতগুলো ধাপ রয়েছে, এর মধ্যে প্রথম এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ন, সবচেয়ে সহজ এনং কঠিন ধাপ হলো কিওয়ার্ড রিসার্চ। আপনি যদি সঠিক ভাবে কিওয়ার্ড রির্সাচ করতে পারেন এবং সঠিক কিওয়ার্ড বাছাই করতে পারেন তবে এসইও এর অন্যান্য ধাপগুলো আপনার জন্য সহজ হবে। সাধারনত বলা হয়ে থাকে যে সঠিকভাবে কিওয়ার্ড বাছাই করতে পারলে এসইও এর ২০-৩০% কাজ হয়ে যায়। তো চলুন কিওয়ার্ড এবং কিওয়ার্ড রির্সাচ নিয়ে কিছুটা বিস্তারিত আলোচনা করা যাক।

কিওয়ার্ড কি?

সাধারনত কিওয়ার্ড বলতে, মানুষ সার্চ ইন্জিনে যা কিছু সার্চ করে তার সমষ্টিকে বুঝায়। মূলত কিওয়ার্ড হলো একটি শব্দ বা শব্দ সমষ্টি যা ব্যবহারের মাধ্যমে মানুষ অনলাইনে কোন কিছু সার্চ করে। কিওয়ার্ড কে আবার প্রশ্নের সাথেও তুলনা করা যেতে পারে, অর্থাৎ মানুষ কোন কিছু সর্ম্পকে জানার জন্য যে সমস্ত প্রশ্ন লিখে সার্চইন্জিনে সার্চ করে তাকে কিওয়ার্ড বলে। আশা করি কিওয়ার্ড সর্ম্পকে আপনাদের মোটামুটি একটা ধারনা দিতে পেরেছি। তাহলে চলুন এবার কিওয়ার্ড রির্সাচ সর্ম্পকে আলেচনা করা যাক।

কিওয়ার্ড এর প্রকারভদ সাধারণত কিওয়ার্ড কে ২ ভাগে ভাগ করা যায় ১. লোকাল বা স্থানীয় কিওয়ার্ড, যা নির্দিষ্ট কোন অঞ্চলকে কেন্দ্র করে বাছাই করা হয়। 2. গ্লোবাল, ইন্টারন্যশনাল বা বিশ্বব্যাপী কিওয়ার্ড, যা বিশ্বব্যাপী কোন ব্যবসা পরিচালনার বা বিশ্বের প্রতিটি দেশ কে কেন্দ্র করে বাছাই করা হয়।

কিওয়ার্ড রির্সাচ কি?

একদম সহজ ভাষায় কিওয়ার্ড রির্সাচ হলো কিওয়ার্ড বাছাই করার পদ্ধতি। অর্থাৎ সঠিক এবং লাভজনক কিওয়ার্ড বাছাই করনে যে পদ্ধতিগুলো ব্যবহার বা যে নিয়মনীতিগুলো মেনে চলা হয় তার সমষ্টিকে কিওয়ার্ড রির্সাচ বলে। সাধারনত ২ভাবে কিওয়ার্ড রির্সাচ করা যায়, ১) ম্যাুয়ালি কিওয়ার্ড রির্সাচ ২) পেইড টুল্স কিওয়ার্ড রির্সাচ।

১) ম্যাুয়ালি কিওয়ার্ড রির্সাচ

ম্যনুয়ালি কিওয়ার্ড রিসার্চ বলতে, কিওয়ার্ড রিসার্চ করার সময় কোন পেইড টুল্স ব্যবহার করা হয় না। এবং প্রতিটি ধাপ ম্যানুয়ালি করা হয়। ম্যানুয়ালি কিওয়ার্ড রিসার্চ এর অসুবিধা হলো অনেক সময় লাগে। সুবিধা হলো প্রচুর সময় লাগলে ও ভালমানের বা লাভজনক কিওয়ার্ড বাছাই করার পাশাপাশি কাজের প্লান টা ও ভালোভাবে হয়ে যায়। এবং কনফিডেন্ট থাকে ১০০%।
তবে ম্যনুয়ালি কিওয়ার্ড রিসার্চ করার সময় কিছু ফ্রি টুল্স ব্যবহার করতে হয়, তবে তার জন্য কনো ধরনের পেমেন্ট করতে হয় না।

২) পেইড কিওয়ার্ড রির্সাচ

পেইড কিওয়ার্ড রিসার্চ হলো, বিভিন্ন পেইড টুল্স ব্যবহার করে কিওয়ার্ড রিসার্চ করা। পেইড টুল্স দিয়ে কিওয়ার্ড রিসার্চ এর সুবিধা হলো অল্প সময়ে অনেক কিওয়ার্ড রিসার্চ করা যায়। এছারাও গ্রাফগুলো একদম স্পস্ট ভাবে দেখা যায় যা ম্যনুয়ালি সম্ভব না।

এই পার্ট এ আপনাদের সুধু মাত্র ব্যাসিক কিওয়ার্ড রিসার্চ করে দেখাবো। পরবর্তীতে ম্যনুয়ালি এবং পেইড কিওয়ার্ড রিসার্চ পদ্ধতি দুইটি আলাদা ভাবে দেখানো হবে। তো চলুন শুরূ করা যাক।

কিওয়ার্ড রিসার্চ শুরুর আগে নিস সর্ম্পকে ভালভাবে আইডিয়া নিতে হবে (নিস বলতে বুঝায় নির্দিষ্ট কোন বিষয়, যা নিয়ে আপনি আথবা আপনার ক্লাইন্ট কাজ শুরু করতে চাচ্ছেন)

এখেত্রে ক্লাইন্ট আপনাকে স্টাটার কিওয়ার্ড দিয়ে দিবে, আর নিজের জন্য হলে আপনাকেই খুজে নিতে হবে।

স্টেপ বাই স্টেপ কিওয়ার্ড রির্সাচ

  • কিওয়ার্ড রির্সাচ ১ম স্টেপ: আপনাকে ব্রেইন স্ট্রমিং করতে হবে এবং কিছু আইডিয়া কিওয়ার্ড নোট করতে হবে। ( ব্রেইন স্ট্রমিং হলো আপনার ব্যবসা অথবা আপনার ওয়েবসাইট ভিজিটর কি লিখে সার্চ করলে আপনাকে খুজে পাবে সে বিষয় সর্ম্পকে চিন্তা করে কিছু কিওয়ার্ড নোট করা।
  • কিওয়ার্ড রির্সাচ ২য় স্টেপ: নোট করা প্রতিটি কিওয়ার্ড লিখে গুগল করবেন এবং গুগল সাজেস্ট রেজাল্ট থেকে কিওয়ার্ড নিয়ে পুনরায় নোটপ্যাড আপডেট করবেন। এক্ষেত্রে আপনার জদি আরোবেশি সাজেস্টেড কিওয়ার্ড দরকার হয়, সে ক্ষেত্রে আনলাইনে বিদ্যমান বিভিন্ন ফ্রি টুল্স ব্যবহার করতে পারেন। নিম্নে কিছু টুল্স এর নাম উল্লেখ করা হলো, যেগুলো মানুষ বেশি পরিমানে ব্যবহার করে।
    1.গুগল কিওয়ার্ড প্লানার, ২. কিওয়ার্ড এভরিহয়ার, ৩.উবার সাজেস্ট, ৪.কিওয়ার্ড রিভেলার, ৫. এল এস আই গ্রাফ, এসইম স্কোপ, কীওয়ার্ড সিটার সহ আরো অনেক টুল্স আছে।
  • কিওয়ার্ড রির্সাচ ৩য় স্টেপ: নোটপ্যড এর সকল কিওয়ার্ড কপি করে গুগল কিওয়ার্ড প্লানার এর সাহাজ্যে সার্চ ভলিওম বের করে এক্সেল ফাইল ডাউনলোড করবেন। এরপর কিওয়ার্ড বাছাই করার কিছু নিয়ম আছে যেগুল ফলো করে কিছু কিওয়ার্ড বাছাই করবেন এবং অবষিষ্ট কিওয়ার্ড ফাইল থেকে ডিলিট করে দিবেন। (গুগল কিওয়ার্ড প্লানার টুল্স সেটআপ ও ফিচার গুলো নিয়ে পরবর্তীতি বিস্তারিত লিখবো ইনশাল্লাহ)।
  • কিওয়ার্ড রির্সাচ ৪থ স্টেপ: বাছাইকৃত প্রতিটি কিওয়ার্ড এর কম্পিটিটর্স এনালাইসিস এর মাধ্যমে আপনি আপনার কাঙ্ক্ষিত কিওয়ার্ডটি খুজে পাবেন। (কম্পিটিটর হলো একই কিওয়ার্ড নিয়ে যারা কাজ করে আসছে অথবা যারা ইতিমধ্যেই কাজ শুরু করেছে)।

কিওয়ার্ড বাছাই এর সময় যে নিয়ম নীতিগুলো ফলো করতে হয় তা নিম্নে দেয়া হলো। সাথে কিওয়ার্ড রিসার্চ এর জন্য আপনাদের উদ্দেশ্যে একটা ফাইল দেয়া হলো যা আপনারা ডাউনলোড করতে পারবেন।

আমাকে দেখতে এবং ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন

কিওয়ার্ড বাছাই এর নিয়ম গুলো

  1. সার্চ ভলিউম ৮০০ -১০০০ অথবা তার বেশি হবে। (যতোবেশি সার্চভলিওম সংক্রান্ত কিওয়ার্ড নিবেন ডিফিকাল্টি ততো বেশি হবে)।
  2. অলইনটাইটেল ৫০০ অথবা ৫০০ এর মধ্যে হবে। সাধারনত অলইনটাইটেল ৫০০ অথবা ৫০০ এর কম হলে, লোকম্পিটিটিভ ধরা হয়, ৫০০ -১০০০ এর মধ্যে হলে মিডিয়াম লোকম্পিটিটিভ, এবং ১০০০ এর বেশি হলে হলে হাই লোকম্পিটিটিভ ধরা হয়
  3. কম্পিটিটর এর পিএ, ডিএ ২০-২৫ অথবা ৩০ এর মধ্যে আছে এমন কিওয়ার্ড বাছাই করতে হবে। (পিএ হলো পেজ অথরিটি, মানে একটি ওয়েব সাইট এর নির্দিষ্ট কোন পেজ এর ১০০ এর মধ্যে এভারেজ স্কোর হলো পিএ। তদ্রূপ ডি এ হলো, একটি ওয়েবসাইট এর সবগুলো পেজ এর ম্মিলিত এভারেজ স্কোর, যেটা মজবার টুল্স এর ফ্রি ক্রম ইক্সটেনশন ব্যবহার করে বের করা হয়।
  4. বাছাইকৃত কিওয়ার্ড এর কম্পিটিটরদের এভারেজ ব্যকলিংক ৩০-৫০ এর বেশি হবে না। যদি বেশি হয় তবে সেই কিওয়ার্ড বাছাই না করাই ভালো, তবে অনেকটা ডিপেন্ড করে আপনার বাজট এর ওপর।
  5. বাছাইকৃত কিওয়ার্ড এর কম্পিটিটরদের এভারেজ স্যোসাল সেয়ার ১০০ এর নিচে হবে।

ব্যাস হয়ে গেলো কিওয়ার্ড রিসার্চ করা। এটাই হলো কিওয়ার্ড রিসার্চ এর ব্যাসিক। পরবর্তীতে কিওয়ার্ড রিসার্চ সর্ম্পকে অন্যান্য পদ্ধতি গুলো ও কম্পিটিটর রিসার্চ সর্ম্পকে বিস্তারিত আলোচনা করবো ইনশাআল্লাহ।

কিওয়ার্ড রিসার্চ নিয়ে যত টুকু আলোচনা করেছি, সে ক্ষেত্রে আপনাদের যেকোনো প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট এর মাধ্যমে জানিয়ে দিন, জতটুকো জানি, উত্তর দেয়ার চেস্টা করবো। আর ভালো লাগলে বেশি বেশি শেয়ার করুন, নিজে জানুন অন্যকে জানার সুজগ করে দিন।

1 thought on “ব্যাসিক কীওয়ার্ড রিচার্স”

  1. Hello, this weekend is good for me, for the reason that this time i amm reading this fantastic educational pirce of writing hede at myy residence.

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Show Buttons
Hide Buttons
Scroll to Top